1. postmaster@deliveryforfun.com : deltonsun :
  2. gertrude@gameconsole.site : hiltonsoutherlan :
  3. carrington@miki8.xyz : imayfe2724819 :
  4. admin@zahidit.com : Publisher :
  5. nihal.sultanul@gmail.com : Jamuna Protidin : নিউজ এডিটর
ঝিনাইদহে করোনা ইউনিটে রোগীদের সঙ্গে ১৮ ঘণ্টা রাখা হলো মরদেহ » Jamuna Protidin
সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬:০৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
Cialis -Top Ten Questions And Answers ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় রাসেল বিল্লাল গ্রেফতার এপার বাংলার কথায় ওপার বাংলার ‘ভালোবাসি চলো আবারও’ গলাচিপায় সক্রিয় কালা জ্বর রোগ শনাক্তকরণ সভা গলাচিপা হাসপাতালের শিশু ও প্রসূতি ওয়ার্ড ঝুকিপূর্ণ গণসংযোগে ব্যস্ত শ্যামল সিদ্দিক,জনসমর্থনে নৌকা এগিয়ে রাজশাহী জেলা পরিষদ কার্যালয়ে রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির কার্যনির্বাহী কমিটির প্রথম সভা পুলিশের অভিযানে নওগাঁর নিয়ামতপুরে অবৈধ ফেন্সিডিল উদ্ধার’ ২ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নওগাঁর মান্দায় মাছধরাকে কেন্দ্র করে ছোট ভাইয়ের লাঠির আঘাতে বড় ভাই নিহত,আটক-২ মান্দায় প্রতিপক্ষের আঘাতে বৃদ্ধের মৃত্যু, আটক ২

ঝিনাইদহে করোনা ইউনিটে রোগীদের সঙ্গে ১৮ ঘণ্টা রাখা হলো মরদেহ

এম বুরহান উদ্দীন,ঝিনাইদহ
  • প্রকাশের সময়: শুক্রবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৫৪ বার পঠিত

করোনা রোগীদের চিকিৎসায় ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে চরম অব্যবস্থাপনা দেখা দিয়েছে। সদর হাসপাতালের করোনা ইউনিটে এক বৃদ্ধ মারা যাওয়ার পরও তার মরদেহ ১৮ ঘণ্টা সেখানেই রাখা হয়।

ফলে করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তির মরদেহের পাশে রোগীদের দীর্ঘ সময় থাকতে হয়েছে। এতে ক্ষুদ্ধ রোগীরা হাসপাতালের চরম অব্যবস্থাপনার কথা জানিয়েছেন।

রোগীদের ভাষ্য, বৃহস্পতিবার (১০ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৫টার দিকে হাসপাতালের করোনা ইউনিটে জ্বর, সর্দি ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে মারা যান সদর উপজেলার সাতমাইল বারীনগর গ্রামের বৃদ্ধ শিতিষ চন্দ্র (৭৫)। মারা যাওয়ার পর তার স্বজনরা চলে যান।

তবে মারা যাওয়া ব্যক্তির স্ত্রী আরতী চৌধুরীর দাবি, সন্তানেরা ঢাকায় থাকায় সময়মতো মরদেহ নিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়নি।

এর আগে গত বুধবার (৯ সেপ্টেম্বর) আবজাল গাফফার (২০) নামে এক যুবক জ্বর ও সর্দি নিয়ে নমুনা পরীক্ষার জন্য এলে তাকে করোনা ইউনিটে ভর্তি করা হয়। এরপর বৃহস্পতিবার নমুনা নেয়া হয়।

ওই যুবক জানান, একটি মরদেহের পাশে তাকে সারারাত কাটাতে হয়েছে। যা তাকে মানসিকভাবে অসুস্থ করে তুলেছে।

সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের মেডিকেল অফিসার ডা. মুশফিকুর রহিম জানান, যে কোনো সুস্থ রোগী মারা গেলেই রোগীদের পাশে রাখার নিয়ম নেই। আর এখানে করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তিকে তো রাখার সুযোগই নেই।

তবে তিনি জানান, সন্ধ্যার দিকে ওই বৃদ্ধ মারা যাওয়ার পরপরই তার সৎকারের জন্য স্বজনদের জানানো হয়। কিন্তু স্বজনরা সময়মতো আসেননি। ফলে মরদেহ রাতে সেখান থেকে সরানো হয়নি।

ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার অপূর্ব কুমার সাহা জানান, এ ঘটনায় রোগীদের সেখান থেকে সরানোর ব্যবস্থা নেয়া হয়েছিল। তবে রোগীদের প্রচণ্ড চাপ ও বেড না থাকায় সমস্যা হয়েছে।

এদিকে ঝিনাইদহে ক্রমেই বাড়ছে করোনা আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা । ঝিনাইদহ সিভিল সার্জন অফিসের করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডা. প্রসেনজিৎ পার্থ বিশ্বাস জানান, শুক্রবার নতুন করে জেলায় ১৭ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

এতে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৭৯৪ জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন এক হাজার ২৬৫ জন। আর করোনা আক্রান্ত হয়ে জেলার ছয় উপজেলায় মারা গেছেন ৩১ জন। এর মধ্যে সদর উপজেলাতেই মারা গেছেন ২০ জন।

সংবাদটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর...

© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | যমুনাপ্রতিদিন.কম

Theme Customized BY LatestNews