1. postmaster@deliveryforfun.com : deltonsun :
  2. gertrude@gameconsole.site : hiltonsoutherlan :
  3. carrington@miki8.xyz : imayfe2724819 :
  4. admin@zahidit.com : Publisher :
  5. nihal.sultanul@gmail.com : Jamuna Protidin : নিউজ এডিটর
ধর্ষণ প্রতিরোধে শালীন পোশাকের গুরুত্ব অপরিসীম » Jamuna Protidin
মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ০৮:৪৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
যেকোনো অন্যায় ও অনৈতিক কাজের ব্যাপারে সরকার কঠোর অবস্থানে রয়েছে-কুষ্টিয়ায় হানিফ দুর্গাপূজার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন আমেরিকা প্রবাসী জসিম উদ্দিন কনক কুষ্টিয়ার নববধুকে প্রকাশ্যে হত্যার অভিযোগ কুষ্টিয়ার মিরপুরে ৩ জেলেকে জরিমানা ফুলবাড়ীতে সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী লিটনের পূজামন্ডপ পরিদর্শন। লালপুরে বাস নিয়ন্ত্রন হারিয়ে ডোবায় পরে মা ও মেয়ে নিহত আহত ১০ রাজশাহীর বাঘায় শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে শাড়ি-কাপড় বিতরণ লোহাগড়ায় সড়কের বিভিন্ন প্রজাতির সরকারী গাছ বিনা টেন্ডারে বিক্রি করার অভিযোগ মান্দায় নির্যাতনের শিকার গৃহবধূ মৌসুমীর হাসপাতালে মৃত্যু কলেজের খেলার মাঠে ভবন নির্মাণ না করার দাবী

ধর্ষণ প্রতিরোধে শালীন পোশাকের গুরুত্ব অপরিসীম

প্রতিবেদকের নাম
  • প্রকাশের সময়: বুধবার, ১৪ অক্টোবর, ২০২০
  • ৪০ বার পঠিত

ধর্ষণ! ধর্ষণ হচ্ছে বর্তমান সময়ের সবচেয়ে আলোচিত একটি বিষয়। যা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও মিডিয়ার বদৌলতে প্রতিনিয়ত চোখে পড়ে। গ্রাম কিংবা শহর থেকে শুরু করে , বাড়িতে, রাস্তায়, অফিসে বা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এমনকি চলমান বাসে পর্যন্তও ঘটে চলেছে এমন ন্যাক্কাড় জনক ঘটনা।

ধর্ষণ বলতে আমরা বুঝি কারো ইচ্ছার বিরুদ্ধে তার সাথে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনের মাধ্যমে যৌন তৃপ্তি লাভ করা। একটু অন্যভাবে বললে যা দাঁড়ায় তা হলো কর্তার ইচ্ছায় কর্তীর অনিচ্ছায় জোরপূর্বক ঘর্ষনের ফলে সৃষ্ট বর্ষনই হলো ধর্ষণ।

সমাজে এ রুপ অপরাধের মাত্রা দিন দিন বেড়েই চলেছে। সমাজে চিল, শকুনরুপী পোষাক পরিহিত কালপীঠেরাই এই আমাদের বাড়ীর মা,বোন থেকে শুরু করে পত্নীদেরও অপবিত্র ও অশুচি করে তুলছে।

ধর্ষনের জন্য আরো যে সকল কারণকে দায়ী করা চলে তা হলো নৈতিকতার অবক্ষয়, নারীদের সচেতনতার অভাব, দোষী ব্যক্তিদের শাস্তি না দেয়া, পারিবারিক ও সামাজিক প্রতিরোধের অভাব, নারীর খোলামেলা ও আবেদনময়ী পোশাক পরিধান, নারী-পুরুষের অবাধ মেলামেশার সুযোগ, সন্তানের প্রতি পিতা-মাতার উদাসহীনতা ইত্যাদি।

আর তাই বর্তমানে ধর্ষণ একটি সামাজিক ব্যাধিতে পরিণত হয়েছে। এটি কারো একার পক্ষে প্রতিরোধ করা কখনোই সম্ভব নয়। এর জন্য গড়ে তুলতে হবে জনসচেতনতা। আর যেটা সর্বাঙ্গে প্রয়োজন তা হলো নৈতিকতার জাগরণ। আবার অনেকে নিজ পরিবারেই ধর্ষিত হয়। এর পিছনে যা উঠে আসে তা হলো বিকৃত মানসিকতা।

ধর্ষনের উপরিউক্ত কারন ছাড়াও আর একটা
গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হলো আজকালকার অধিকাংশ মেয়েদের খোলামেলা পোশাক পরিধান। এতে করে বাড়ীর বাবা-মা রাও মেয়েদের কিছু বলে না, হয়তো তাঁরাই এসব পোশাক কিনে দেন।যদিও বর্তমান যুগ আধুনিকতার যুগ তবুও বাবা-মা দেরও দেখা উচিত তাঁদের মেয়েরা যেসব পোশাক পরিধান রাস্তাঘাটে,স্কুল,কলেজে যাচ্ছে তা তাদের আব্রু রক্ষিত হচ্ছে কিনা??

বর্তমানে এরুপ পোশাক-পরিচ্ছেদ পরিধান করার ফলে ছেলেদের করে তুলছে আরো হিংস্র।যার ফলে বাড়ছে ধর্ষনের মতো সামাজিক ব্যাধি। এমন খোলামেলা পোশাক পুরুষদের উত্তেজিত হতে বাধ্য করছে।

তাই বলা যায় যে ধর্ষনের জন্যে মেয়েরাও কম দায়ী নয়।ধর্ষনের মতো জঘন্য কাজকে প্রশয় না দিয়ে তাদেরকে এমন দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া উচিত। যাতে করে আগামিতে কেউ কোনোদিন এই জঘন্য কাজ করার আগে শতবার ভাবে।আর কথায় বলে,লজ্জা নারীর ভূষণ।বর্তমানে নারীও তার আব্রু রক্ষা করার পরিবর্তে শরীর দেখাতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে। যেন খোলা মেলা শরীর দেখিয়ে কিছুটা বিকৃত প্রসংশা শোনা আর অবশ্যই যুবসমাজকে উক্তত করাই এদের উদ্দেশ্য হয়ে উঠেছে। সমস্ত নারী যে এরুপ তা নয়। কিন্তু বেশ কিছু নারী এমন কাজ করে চলেছে গোটা দেশে। তারা শালীনতা বোঝায় রাখার ধারও ধারে না।

সুতরাং আমরা যারা শুভবুদ্ধি সম্পন্ন মানুষ, আমাদেরই ভাবা উচিত কোন কাজটা করা উচিত আর কোনটা উচিত নয়।আর আমাদের সমাজের নারীদেরও উচিত শালীনতা বোঝায় রেখে পোশাক পরিধান করা। অশালীন পোশাক পরা থেকে বিরত থাকা। কারণ ধর্ষণ প্রতিরোধে; শালীন পোষাকের গুরুত্ব অপরিসীম। তখন এমনিতেই ধর্ষণ অনেকাংশেই কমে আসবে।

মোঃ হুসাইন আহমদ
শিক্ষার্থী, কওমি মাদরাসা টাংগাইল।
hosainahmad425@gmail.com

সংবাদটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর...

© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | যমুনাপ্রতিদিন.কম

Theme Customized BY LatestNews