1. admin@zahidit.com : Publisher :
  2. postmaster@deliveryforfun.com : deltonsun :
  3. gertrude@gameconsole.site : hiltonsoutherlan :
  4. nelianjani34067@gmail.com : ignaciomounts7 :
  5. carrington@miki8.xyz : imayfe2724819 :
  6. bfniibdsavg@rbufuo.xyz : kenchristenson :
  7. nihal.sultanul@gmail.com : Jamuna Protidin : নিউজ এডিটর
অবশেষে একযোগে দীর্ঘদিন যাবত একই কর্মস্থলে থাকা বিএমডিএ’র ৩৮ কর্মকর্তা কর্মচারীকে স্ট্যান্ড রিলিজ » Jamuna Protidin
মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২১, ০৯:০৭ অপরাহ্ন

অবশেষে একযোগে দীর্ঘদিন যাবত একই কর্মস্থলে থাকা বিএমডিএ’র ৩৮ কর্মকর্তা কর্মচারীকে স্ট্যান্ড রিলিজ

রুহুল আমীন খন্দকার, স্টাফ রিপোর্টার
  • প্রকাশের সময়: রবিবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ১০২ বার পঠিত

দীর্ঘদিন যাবত একই কর্মস্থলে কর্মরত থাকার অভিযোগে বরেন্দ্র বহুমুখি উন্নয়ন কতৃপক্ষ (বিএমডিএ) ৩৮ জন কর্মকর্তা-কর্মচারীকে স্ট্যান্ড রিলিজ করা হয়েছে। যাদের মধ্যে রয়েছে ০৪ জন উচ্চতর উপ-সহকারী প্রকৌশলী, ১২ জন উপ-সহকারী প্রকৌশলী, ০৫ জন পরিদর্শক ও ০১ জন নক্সাকার’সহ মোট ৩৮ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী।

এসব কর্মকর্তারা দীর্ঘদিন ধরে একই কর্মস্থলে বহাল তবিয়তে ছিলেন। গত ০৭ ডিসেম্বর বিএমডিএ’র ভারপ্রাপ্ত সচিব ইকবাল হোসেন স্বাক্ষরিত এক আদেশে তাদের অন্যত্র বদলি করা হয়েছে। তবে এসব কর্মকর্তারা তাদের আগের কর্মস্থলেই থাকার জন্য অপতৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে জানা গেছে। প্রতিষ্ঠানটির উচ্চ পদস্থ একাধিক কর্মকর্তার ভাষ্য মতে, গণমাধ্যম-এ একই কর্মস্থলে দীর্ঘ কয়েক বছর পার প্রকাশিত সংবাদের সত্যতা মেলায় দীর্ঘদিন ধরে থাকা এসব কর্মকর্ত-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে এমন সিধান্ত নেয়া হয়েছে। এ সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে বিএমডিএ’র ডিপ্লোমা প্রকৌশলীদের একটি অংশ আদেশটি বাতিলের জন্য ততপরতা চালাচ্ছে বলেও অভিযোগ উঠেছে।

একাধিক সূত্র বলছে, দীর্ঘদিন ধরে একই কর্মস্থলে থাকার অভিযোগে চলতি বছরের গত নভেম্বর মাসে বিভিন্ন গনমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর প্রকাশিত সংবাদের সত্যতা পাওয়ায় এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

আরও জানা গেছে, উত্তরাঞ্চলের কৃষি ও কৃষকের উন্নয়নে সর্ববৃহৎ প্রতিষ্ঠান বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিএমডিএ) রাজশাহী ও রংপুর বিভাগে প্রায় ৩ যুগ ধরে কাজ করছে। প্রতিষ্ঠানটির জেলা ও উপজেলা কার্যালয় গুলোতে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা পোষ্টিং নিতে অনিচ্ছুক। তাদের পছন্দের স্থান হচ্ছে প্রধান কার্যালয়। এখানে বিভিন্ন স্তরে অর্ধশত কর্মকর্তা-কর্মচারী দীর্ঘদিন ধরে প্রধান কার্যালয়’সহ বৃহত্তর রাজশাহী জেলায় অবস্থান করছেন। এ কারণে মাঠ পর্যায়ের অন্যান্য জেলাগুলোতে জনবলের ঘাটতি থাকায় প্রতিষ্ঠনটির উন্নয়ন কার্যক্রম বিঘ্নিত হওয়ার পাশাপাশি কৃষকরা ন্যায্য সেবা পাওয়া থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

সূত্র মতে, বিএমডিএ’র প্রধান কার্যালয়ে প্রয়োজনীয় জনবলের তুলনায় অধিক সংখ্যক জনবল কর্মরত রয়েছে। এদের মধ্যে অধিকাংশ কর্মকর্তা-কর্মচারী অলস ও কর্মহীন ভাবে বেতন-ভাতা উত্তোলন করছেন। অন্যদিকে মাঠ পর্যায়ে প্রচুর জনবলের ঘাটতি থাকায় সার্বিক কার্যক্রম মারাত্মক ভাবে বিঘ্নিত হচ্ছে। ইতোপূর্বে এ বিষয়ে জাতীয় ও স্থানীয় মিলে একাধিক পত্রিকায় বিভিন্ন শিরোনামে সংবাদটি প্রকাশিত হয়।

এই দপ্তরে অদৃশ্য কারণে দীর্ঘদিন ধরে প্রধান কার্যালয়’সহ বৃহত্তর রাজশাহী জেলায় অবস্থানকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অন্যত্র বদলী করা সম্ভব হয়নি বলেও প্রকাশিত সংবাদগুলোতে উল্লেখ করা হয়েছে।

এদিকে দীর্ঘকাল যাবত একই কর্মস্থলে অবস্থান করায় তারা নানারকম অনিয়ম-দূর্নীতির সাথে জড়িয়ে পড়ে। ইতোমধ্যে অনেকের বিরুদ্ধে দূর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। বিএমডিএ-এর ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী পরিচালক আব্দুর রশিদের নিকট থেকে নির্বাহী পরিচালকের দায়িত্বগ্রহণ করেন বর্তমান নির্বাহী পরিচালক শ্যাম কিশোর রায় (যুগ্ম সচিব)। দায়িত্ব গ্রহণের প্রায় এক বছর পর সংবাদপত্রে প্রকাশিত সংবাদের সুত্র ধরে অনুসন্ধান চালিয়ে প্রধান কার্যালয়’সহ মাঠ পর্যায়ের একই কর্মস্থলে দীর্ঘদিন যাবৎ কর্মরত বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মাঠ পর্যায়ে কাজের গতিশীলতা বৃদ্ধির লক্ষে বিএমডিএ-এর ভারপ্রাপ্ত সচিব মোঃ ইকবাল হোসেন স্বাক্ষরিত আদেশে ২২ জন কর্মকর্তা-কর্মচারীকে বদলীর নির্দেশ দিয়েছেন।

যাদের মধ্যে ০৪ জন উচ্চতর উপ-সহকারী প্রকৌশলী, ১২জন উপ-সহকারী প্রকৌশলী, ৫ জন পরিদর্শক ও ১জন নক্সাকারসহ মোট ৩৮ জন কর্মকর্তা-কর্মচারীর বদলীর পৃথক দুটি স্মারকে আদেশ জারী করেন।

আদেশে বলা হয়েছে, গত ০৯ ডিসেম্বরের মধ্যে তারা ছাড়পত্র গ্রহণ করবেন এবং ১০ তারিখ সকাল থেকেই তারা নতুন কর্মস্থলে যোগ দেবেন। কিন্তু খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ১২ ডিসেম্বরেও বেশিরভাগ কর্মকর্তা নতুন কর্মস্থলে যোগ দেননি। তারা বদলির আদেশ বাতিলের জন্য অপতৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন।

বিএমডিএ-এর মাঠ পর্যায়ের বিভিন্ন কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সাথে যোগাযোগ করে জানা যায়, এ বদলী আদেশে অধিকাংশ কর্মকর্তা-কর্মচারী সাধুবাদ জানিয়েছেন। তাদের অভিমত দীর্ঘদিন পরে হলেও আমাদের দফতরে বরফ গলতে শুরু করেছে। কিন্তু বদলীপ্রাপ্ত এক শ্রেণীর কর্মকর্তা-কর্মচারিরা এ আদেশ বাতিলের জন্য বিভিন্ন ধরনের অপতৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে।

এ ঘটনায় বিএমডিএ-এর মাঠ পর্যায়ের বিভিন্ন কর্মকর্তা-কর্মচারীরগণের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা গণমাধ্যম কর্মীদের বলেন, দীর্ঘদিন পরে হলেও কর্তৃপক্ষের এই উদ্যোগ প্রসংশনীয়। যা মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারী’সহ সকল মহলে প্রসংশিত হচ্ছে। এ প্রেক্ষাপটে বিএমডিএ’র কতিপয় কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বদলী বাতিলের অপতৎপরতা মোটেই কাম্য নয়। নতুন কর্মস্থলে যোগদান না করে অপতৎপরতায় লিপ্তদের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক পদক্ষেপ গ্রহণ করা জরুরী বলে মনে করছেন সৎ ও নিষ্ঠাবান কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

বিএমডিএ সূত্রে জানা গেছে, বদলি করা এসব কর্মকর্তারা একই স্থানে দীর্ঘ দিন থেকে দুর্নীতির স্বর্গরাজ্য গড়ে তুলেছিলেন। কেউ কেউ একই স্থানে পার করেছেন এক যুগ। নানা অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে। আর এ কারণেই তালিকা করে তাদের বদলি করা হয়েছে।
জানতে চাইলে বিএমডিএ’র নির্বাহী পরিচালক শ্যাম কুমার রায় বলেন, আমরা উত্তরাঞ্চলের সেচ কার্যক্রম পরিচালনা করি। সরকার বলেছে, দেশের আবাদযোগ্য এক ইঞ্চিও মাটি যেন অনাবাদি না থাকে।

কিন্তু দেখা গেছে, বিএমডিএ’র কোথাও কোথাও প্রয়োজনের অধিক জনবল আবার কোথাও জনবল সংকট। এতে কার্যক্রম পরিচালনা বাধাগ্রস্ত হচ্ছিল। সে কারণেই কর্মকর্তাদের বদলি করা হয়েছে। এই আদেশ বাতিল করে কারও আগের স্থানে থাকার সুযোগ নেই বলেও জানান এই কর্মকর্তা।

সংবাদটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর...

© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | যমুনাপ্রতিদিন.কম

Theme Customized BY LatestNews