1. butjetis@honeys.be : Akram :
  2. end497@eay.jp : alom :
  3. whomap@macr2.com : Ashif :
  4. postmaster@deliveryforfun.com : deltonsun :
  5. gertrude@gameconsole.site : hiltonsoutherlan :
  6. nelianjani34067@gmail.com : ignaciomounts7 :
  7. carrington@miki8.xyz : imayfe2724819 :
  8. admin@zahidit.com : Publisher :
  9. bfniibdsavg@rbufuo.xyz : kenchristenson :
  10. nihal.sultanul@gmail.com : Jamuna Protidin : নিউজ এডিটর
চোখে সর্ষেফুল দেখার এখন'ই সময় » Jamuna Protidin
বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১, ১১:২২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে থাকবেনা কেউ, কঠোর অবস্থানে পুলিশ ও উপজেলা প্রশাসন মোংলায় করোনা সংক্রমণ রোধে আ.লীগ নেতা শেখ জসিমের মাস্ক ও লিফলেট বিতরণ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাণ্ডব : আরও ৩৯ জন গ্রেফতার রাজশাহীতে পথচারী ও রোজাদারদের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরণ করলেন কাউন্সিলর রজব দ্বিতীয় লকডাউন কঠোর অবস্থানে দশমিনা প্রশাসন বেলকুচিতে লকডাউনে প্রশাসন প্রথম দিনে ২৭ জনকে জরিমানা কেশবপুরে যুবদলের নেতার পিতার কবর জিয়ারত করেন কেন্দ্রীয় নেতা আজাদ মাদারীপুরে এ্যাডভোকেট মতিন মোল্লা ফাউন্ডেশন কতৃক ৩’শ অসহায় পরিবারকে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ রাস্তার ওভার লেঃ কার্পেটিং কাজ পরিদর্শন’ মান পরীক্ষাসহ দ্রুত কাজ শেষ করার নির্দেশনা রাসিক মেয়রের করোনা সংক্রমণ রোধে সরকারী বিধি-নিষেধ কঠোরভাবে প্রতিপালনে আইজিপি’র নির্দেশ

চোখে সর্ষেফুল দেখার এখন’ই সময়

প্রতিবেদকের নাম
  • প্রকাশের সময়: শনিবার, ২ জানুয়ারি, ২০২১
  • ২৩৯ বার পঠিত
ছবি: কোহিনূর আক্তার প্রিয়া

আদিত্ব্য কামাল,নিজস্ব প্রতিবেদক :

চোখে সর্ষেফুল দেখার সময় এখনই! সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঢুঁ মারলেই দেখা যায়, সরিষা ক্ষেতের অসংখ্য ছবি। এসব ছবি দেখে যে কারোরই হলুদ রাজ্যে ঘুরে আসার ইচ্ছে জাগতেই পারে। কিন্তু কোথায় পাবেন সরিষা ক্ষেতের খোঁজ? গ্রাম-বাংলার চারপাশ এখন সরিষা ক্ষেতে ঢাকা। যেদিকেই চোখ যায় শুধু হলুদ আর হলুদ। প্রকৃতির নির্মল বাতাসে ভেসে বেড়াচ্ছে সরিষা ফুলের মাতাল করা ঘ্রাণ। যে কোনো দিন কিছুটা সময় করে তাই ঘুরে আসতে পারেন কাছে-দূরের কোনো এক সরিষা ক্ষেত থেকে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সাদেকপুর ইউনিয়নের দিগন্তজুড়া প্রকৃতিতে যেন বসন্ত লেগেছে। অথচ এখন শীতকাল, মাঘের ভরা শীত। ধুলা আর কুয়াশায় ধূসর প্রান্তর। তাও দূর থেকে হলুদ আভার আহ্বান। চারদিকে হলুদের সমাহার। এ যেন রূপকথার রাজকুমারীর গায়ে হলুদ। সবাই কনেকে হলুদ দিতে এসেছেন। এসেছে প্রজাপতি, মৌমাছি, হলুদিয়া-নীলরঙা পাখি, পোকামাকড় থেকে শুরু করে রাজ্যের প্রজারা।

সবাই যেন হুমড়ে পড়ছে হলুদের ওপর। এখানে একটু রঙ পাওয়া যাচ্ছে। রোদ চড়লে হলদুও যেন জ্বলে উঠছে। তার সেকি ঝাঁজালো ঘ্রাণ। শীতের বাতাসে ঘ্রাণও তেমন পাওয়া যায় না। বেশির ভাগ ফুলে এ সময় গন্ধ থাকে না সরিষা ব্যতিরেকে। এ ঝাঁজ যেন বুকে ধাক্কা মারে। বিজ্ঞানীরা একে বায়ু বিশুদ্ধকরণ ঘ্রাণ বলে বিবেচনা করেন।

ফুসফুসের উপকার সাধিত হয় সরিষা ফুলের ঘ্রাণে। তাই শীতে বসে না থেকে প্রান্তরের হলুদে মিশে যান একদিন। সেখানে সবাই ব্যস্ত। কেউ কারো দিকে তাকানোর সময় নাই। কৃষকরা ব্যস্ত সরিষা পরিচর্যায়, ভ্রমর মধু খুঁজে ফিরছে ফুলে ফুলে।

দেখবেন নানা রঙের প্রজাপতিতে ভরে আছে সরিষা ক্ষেত। রঙ-বেরঙের প্রজাপতি ডানা ঝাপটানো চিত্তে জাগাবে নবতর আনন্দ। কোথাও ঝলক দিয়ে উঠছে কালো ডানায় হলুদ-লালের মিশ্রণ, নীল, সবুজ, লাল-নীলের ডোরাকাটা বিভিন্ন রঙের প্রজাপতি উড়ে বেড়াচ্ছে। প্রজাপতিরা এখানে আসে বিশ্রাম নিতে। পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, সরিষার ঝাঁজে তাদেরও উপকার মেলে। অনেক দূর উড়ে উড়ে ঘুরে বেড়ানোর পর সরিষার মাদকতা তাদের আকৃষ্ট করে।

এসে জিরিয়ে নেয় খানিকটা কোনো ফুলের অথবা পাতার গোড়ায়। আর সেখানেই ঘটে বিপত্তি। প্রজাপতি খাদকরা এর মধ্যেই হাজির হয়ে গেছে আশপাশে। ঘাপটি মেরে আছে কখন ঠোকর মেরে তুলে নিয়ে যাবে রঙিন ডানার প্রজাপতি। ফিঙে, শালিক এমন অনেক শিকারি পাখির জন্যও যেন উত্সব। অঢেল প্রজাপতি আজ তাদের খাবার হিসেবে উড়ে বেড়াচ্ছে নাগালের মধ্যেই।

শুধু প্রজাপতি কেন আরো অনেক নাম না জানা পোকার বসত সরিষা ক্ষেতজুড়ে। আশ্চর্য সব পোকামাকড়ের দেখা মিলবে। কোনটা হলুদ, কোনটা লাল। পিঁপড়ারাও দলবেঁধে সরিষা ক্ষেতে ফুল তুলতে এসে হাজির। এ যেন এক ঈশপের গল্প। এ সময় ফুল ও ভ্রমরের রূপকথার সন্ধানে হেঁটে বেড়াতে পারেন সরিষা ক্ষেতের আইল ধরে, প্রকৃতির জীবনের অনেক গোপন মুহূর্তের সন্ধান পেয়ে যাবেন হয়তো।

শীতে শুকিয়ে আসা খাল-বিল, কলমি ফুল, ঘুটে ফুল, সবজি থেকে ঝিঙে, লাউ-কুমড়ার হাসি নজর এড়াবে না এ সময়। পাখিদের উত্পাত, ভাঙা মাটির কলসি দিয়ে বানানো কাকতাড়ুয়া জমিয়ে তুলবে আপনার ভ্রমণ। এক একটি নীলকণ্ঠ, ফিঙে, পানকৌড়ি শীতের সৌন্দর্যের সঙ্গে মিশে আপনাকে করবে উত্ফুল্ল।

সরিষা ক্ষেতের মাঝে দাঁড়ালে তার ঘ্রাণ আপনাকে মুগ্ধ করে দিবে আর দিনের বেলায় সরিষা ক্ষেতে প্রচুর অক্সিজেন থাকে। মিষ্টি গন্ধ ভুলিয়ে দিবে শহুরে জীবনযাপনের বিরক্তি।

সরিষা ক্ষেতের ছবি তোলার সময় সাবধানতা অবলম্বন করুন। সরিষা গাছ না মাড়িয়ে ক্ষেতের আইলের উপরে হেঁটে বেড়ান কিংবা ছবি তুলুন। চাষী থাকলে দরকার মতো অনুমতি নিন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর...

© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | যমুনাপ্রতিদিন.কম

Theme Customized BY LatestNews