1. butjetis@honeys.be : Akram :
  2. end497@eay.jp : alom :
  3. whomap@macr2.com : Ashif :
  4. postmaster@deliveryforfun.com : deltonsun :
  5. gertrude@gameconsole.site : hiltonsoutherlan :
  6. nelianjani34067@gmail.com : ignaciomounts7 :
  7. carrington@miki8.xyz : imayfe2724819 :
  8. admin@zahidit.com : Publisher :
  9. bfniibdsavg@rbufuo.xyz : kenchristenson :
  10. nihal.sultanul@gmail.com : Jamuna Protidin : নিউজ এডিটর
চাকরিকালীন অপরাধের শাস্তি ,ফলাফল এবং প্রতিকার- » Jamuna Protidin
বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১, ০১:০৭ অপরাহ্ন

চাকরিকালীন অপরাধের শাস্তি ,ফলাফল এবং প্রতিকার-

প্রতিবেদকের নাম
  • প্রকাশের সময়: সোমবার, ১১ জানুয়ারি, ২০২১
  • ২৫৩ বার পঠিত

একজন চাকরিজীবী পেশা জীবনে সরকার বা কর্তৃপক্ষ কর্তৃক প্রনিত আইন ও বিধিবিধান ভংগের জন্য বিভিন্ন মাত্রায় শাস্তি প্রাপ্ত হন।

শাস্তির ধরন-

সরকারি চাকরি আইন ২০১৮ ধারা ৩২ ও সরকারি কর্মচারী (শৃংখলা ও আপিল) বিধিমালা,২০১৮ এর বিধি ৪ অনুসারে দন্ড দুই ধরণের

ক) লঘু দন্ড
১.তিরষ্কার
২.নিদিষ্ট সময়ের জন্য পদোন্নতি বা ইনক্রিমেন্ট বন্ধ
৩.আর্থিক ক্ষতিজনিত কারনে তা আদায়
‌৪. বেতন গ্ৰেডের নিম্মতর ধাপে অবনমিতকরন।

খ) গুরু দন্ড
১. নিম্ম পদ বা বেতন গ্ৰেডে অবনমিতকরন
২. বাধ্যতামূলক অবসর প্রদান
৩. অপসারণ
৪. বরখাস্ত

শাস্তির প্রয়োগ-
‌১. সরকারি কর্মচারী (শৃংখলা ও আপিল) বিধিমালা,২০১৮ এর বিধি ৩ অনুসারে অদক্ষতার কারণে তিরষ্কার ও বরখাস্ত ছাড়া অন্য কোন দন্ড প্রদান করতে হবে। অন্য কোন অদক্ষতার কারণে বরখাস্ত ছাড়া অন্য কোন শাস্তি।
‌২. অসদাচরণের জন্য যেকোনো শাস্তি।
‌৩.পলায়নের জন্য তিরষ্কার ছাড়া অন্য যেকোনো শাস্তি।
‌৪.দূনীতির জন্য যেকোনো শাস্তি, তবে পূনরাবৃত্তির জন্য নিম্ন পদ বা নিম্ম বেতন গ্ৰেডে অবনমিতকরন ছাড়া অন্য কোনো শাস্তি।
‌৫.নাশকতামূলক কাজের জন্য নিম্ম বেতন গ্ৰেডে বা নিম্ম পদে অবনমিতকরন ছাড়া অন্য কোনো শাস্তি।

সাময়িক বরখাস্ত-
সরকারি চাকরি আইন এর ধারা ৩৯ ও সরকারি কর্মচারী (শৃংখলা ও আপিল) বিধিমালার বিধি ১২ অনুসারে কোন কর্মচারীর বিরুদ্ধে বিভাগীয় কার্যধারা গ্ৰহনের প্রস্তাব বা কার্যধারা চালু করলে কর্তৃপক্ষ অভিযোগের গুরুত্ব অনুসারে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করতে পারেন। এবং কোন কর্মচারী দেনার দায়ে আটক হলে বা ফৌজদারি মামলায় গ্রেফতার হলে বা তার বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল হলে কর্তৃপক্ষ তাকে সেইদিন হতেই বরখাস্ত করতে পারেন।

শাস্তির বিরুদ্ধে আপিল-
সরকারি চাকরি আইন এর ধারা ৩৪ ও সরকারি কর্মচারী শৃংখলা ও আপিল বিধিমালার বিধি ১৬ অনুসারে কোন কর্মচারীকে প্রদত্ত শাস্তির বিরুদ্ধে তামাদি সহ সর্বোচ্চ ৬ মাসের মধ্যে নির্ধারিত কর্তৃপক্ষের নিকট আপিল দায়ের করতে পারবেন। তবে সরকারি চাকরি আইন এর ধারা ৩২ বা ৩৩এর ১ অনুসারে রাষ্ট্রপতি কর্তৃক প্রদত্ত কোন শাস্তির বিরুদ্ধে আপিল দায়ের করা যাবে না।

শাস্তির বিরুদ্ধে রিভিউ আবেদন-

ধারা ৩৬ ও বিধি ২২ অনুসারে
রাষ্ট্রপতি কর্তৃক প্রদত্ত কোন শাস্তির বিরুদ্ধে রিভিউ আবেদন দায়ের করা যাবে।

শাস্তির বিরুদ্ধে বিরুদ্ধে রিভিশন-

ধারা ৩৭ ও বিধি ২৩ অনুসারে রাষ্ট্রপতি কর্তৃক প্রদত্ত কোন শাস্তির বিরুদ্ধে এক বছরের মধ্যে রিভিশন আবেদন দায়ের করা যাবে।

আদালতে বিচারাধীন বিষয়-

ধারা ৪১ ও বিধি ২৫ অনুসারে কারো বিরুদ্ধে আদালতে ফৌজদারি মামলা বা কোন আইনগত কার্যধারা চালু থাকলে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় কার্যধারা চালু বা নিস্পত্তির বিষয়ে কোনো আইনি বাধা নেই।

শাস্তির ফলাফল-
ধারা ৩৮ ও বিধি ৪ ও ১৩ অনুসারে কোন কর্মচারীকে বরখাস্ত করলে তিনি সরকারের অন্য যে কোন চাকরিতে নিয়োগ লাভের অযোগ্য হবেন ।
চাকরি হতে অপসারিত হলে অন্য সরকারি চাকরিতে প্রবেশের কোন বাধা নেই।
বাধ্যতামূলক অবসর প্রদানের ক্ষেত্রে সব ধরনের সুযোগ সুবিধা পাবেন।

তবে বরখাস্ত বা অপসারণ করা হলে (রাষ্ট্রপতির কোন আদেশ না থাকলে) ক্ষতিপূরণ ভাতা,অনুতোষিক বা অংশ প্রদায়ক ভবিষ্যত তহবিলে সরকারের চাঁদা পাবেন না।

মোঃ কামাল হোসেন,
এলএল.বি(সম্মান),এলএল.এম (রাবি)
সহকারী ব্যবস্থাপক (আইন),
বিজিডিসিএল, কুমিল্লা।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর...

© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | যমুনাপ্রতিদিন.কম

Theme Customized BY LatestNews