যমুনা প্রতিদিন
ঢাকাবুধবার , ২৮ এপ্রিল ২০২১
  1. English
  2. অর্থ ও বাণিজ্য
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. খেলাধুলা
  6. গণমাধ্যম
  7. চাকরি
  8. ছবিঘর
  9. জাতীয়
  10. জেলার খবর
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. দেশজুড়ে
  13. ধর্ম
  14. নারী ও শিশু
  15. প্রবাসের কথা

পটুয়াখালীতে রমজান আর বৈশাখের খরতাপের মতই আগুন লেগেছে তরমুজের বাজারে

মেহেদী হাসান(বাচ্চু),পটুয়াখালী
এপ্রিল ২৮, ২০২১ ১:৫৬ অপরাহ্ণ
Link Copied!

পটুয়াখালীতে রমজান আর বৈশাখের খরতাপের মতই আগুন লেগেছে তরমুজের বাজারে। চলতি সপ্তাহে খুচরা বাজারে এক কেজি তরমুজের দাম চলছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা কেজি।

একদিকে চলছে করোনা মহামারিতে মানুষে আয় বাণিজ্যও কম তার মধ্যে তরমুজের দাম বাড়তি। এতে সাধারণ মানুষের নাগালের বাইরেই থাকছে সুস্বাধু এ ফলটি।

ফলটি সুমিষ্ট ও পানির চাহিদা পূরণ করায় গ্রীষ্মকালের গরমে তরমুজের চাহিদা থাকে আকাশ চুম্বি আর। ক্রেতাদের এ দুবর্লতাকে কাজে লাগিয়ে কিছু অসাধু ব্যবসায়ীরা অতি লাভবান হওয়ার আশায় পিচ হিসেবে কিনে শহরের বিভিন্ন জায়গায় কেজিতে বিক্রি করছেন।

আগে তরমুজ আমরা পিচ হিসেবে কিনেছি। কিন্তু এবার বেশি টাকা লাভের আশায় কেজি দরে বিক্রি করছে। এতো ভারি একটি ফল ছোট পরিবারের জন্য কিনতে গেলেও ৫ কেজির নিচে হয় না। তার মধ্যে ছোলায়ই হয় এক থেকে দের কেজি।

তরমুজের দাম কেজিতে ৬০ টাকা রাখা হচ্ছে। সাধারনের ক্রয়ের বাইরে চলে যাচ্ছে এ ফলটি। এ রকম অতি মুনাফা লোভীদের আইনের আওতায় আনা হোক।

রাঙ্গাবালীর বেশ কয়েকজন তরমুজ চাষি জানান, চলতি বছর তরমুজ বিক্রি করে লক্ষাধিক টাকা লাভ করেছেন। শত (১০০) হিসেবে তরমুজ বিক্রি করেছেন। ১০ থেকে ১২ কেজির তরমুজটি তিনি ১৮ থেকে ২২ হাজার টাকায় বিক্রি করেছেন। আর ৫ থেকে ৭ কেজির তরমুজ বিক্রি করেছেন ১৪-১৫ হাজার টাকায়।

রাঙ্গাবালীর আরেক তরমুজ চাষী মো. কবির জানায়, আমি এবার ১০ কানি জমিতে তরমুজ চাষ করেছি। এবার তরমুজের ফলন ভালো হয়েছে। ৭০ লাখ টাকার মত তরমুজ বিক্রি করে ভালো দাম পেয়েছি। পাইকাররা আমাদের কাছ থেকে শত হিসেবে কিনে নিয়ে যায়।

প্রিয় পাঠক আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর সরাসরি জানাতে ই-মেইল করুন নিম্নের ঠিকানায়  jamunaprotidin@gmail.com