ঢাকামঙ্গলবার , ২৩ নভেম্বর ২০২১
  1. Entertainment
  2. অর্থ ও বাণিজ্য
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. ইসলাম ও জীবন
  6. খেলাধুলা
  7. গণমাধ্যম
  8. চাকরি
  9. ছবিঘর
  10. জাতীয়
  11. জেলার খবর
  12. তথ্যপ্রযুক্তি
  13. দেশজুড়ে
  14. নারী ও শিশু
  15. প্রচ্ছদ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

মাদক হিসেবে অক্সি-মরফোনের ব্যবহার’ ডিবি পুলিশের অভিযানে ১৩ হাজার পিস উদ্ধার,গ্রেফতার ২

রুহুল আমীন খন্দকার, স্টাফ রিপোর্টার
নভেম্বর ২৩, ২০২১ ১০:২৪ অপরাহ্ণ
Link Copied!

রাজধানীর কোতয়ালী ও ধানমন্ডি এলাকা থেকে অভিযান চালিয়ে ১৩,০০০ (তের হাজার) পিস অক্সি-মরফোন’সহ দুই’জনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) এর গোয়েন্দা লালবাগ বিভাগ।

গ্রেফতারকৃত আসামীদের নাম মোঃ আলমগীর সরকার ও জাহিদুল ইসলাম।

ডিএমপির ধারাবাহিক অভিযানে কোতয়ালী থানার বাবু বাজার এলাকা ও সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের ধানমন্ডি শাখায় অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।

আজ মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর ২০২১ ইং) বেলা ১১ টায় ডিএমপি’র মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানান ডিবির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার এ কে এম হাফিজ আক্তার,বিপিএম (বার)।

ডিবির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার বলেন, গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে গত শুক্রবার (১৯ নভেম্বর, ২০২১ ইং) কোতয়ালী থানার বাবু বাজার এলাকা ও সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের ধানমন্ডি শাখায় অভিযান চালিয়ে অক্সি-মরফোন’সহ আলমগীর ও জাহিদুলকে গ্রেফতার করা হয়।

এ ঘটনায় গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে কোতয়ালী থানায় দেশের প্রচলিত আইনে মামলা রুজু হয়েছে।

তিনি বলেন,মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর নির্দিষ্ট কিছু ব্যক্তি এবং প্রতিষ্ঠানকে নির্দিষ্ট পরিমাণ অক্সি-মরফোন বিক্রয় ও বাজারজাত করার অনুমোদন দেয়।যা নির্দিষ্ট কোম্পানির নিকট হতে লাইসেন্স প্রদর্শনপূর্বক পরিবহনের রুট প্রদর্শন করে এবং কার কাছে বিক্রয় করা হবে তা প্রদর্শন করে গ্রহণ এবং বিক্রয় করতে হয়।

দেশে অক্সি-মরফোন আমদানি ও বিক্রয়ের জন্য একমাত্র লাইসেন্স প্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান হচ্ছে জিসকা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড।যারা সারা বাংলাদেশে ১২০টি লাইসেন্সপ্রাপ্ত ডিলারের মাধ্যমে বিভিন্ন মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে সরবরাহ করে থাকে।

গত ৫ মাসে ৫ লাখ ডোজ অক্সি-মরফোন বিক্রয় করেছে তারা।এটি শুধুমাত্র রেজিস্টার্ড ডাক্তারের প্রেসক্রিপশন এর অনুমোদিত পরিমাণ ব্যবহার করা যাবে।কিন্তু মামলাটি তদন্তকালে পরিলক্ষিত হয়, ইদানিং ওরাল ফরমেটে অক্সি-মরফোন খুচরা বাজারে ব্যাপক হারে বিক্রয় হচ্ছে।

যুব সমাজ (Young Generation) বিশেষ করে বিশ্ববিদ্যালয় এবং কলেজের শিক্ষার্থীরা এই অক্সি-মরফোন গুড়ো করে যেকোন সিরাপ বা পানীয় এর সাথে মিক্স করে মাদক হিসেবে ব্যবহার করছে,যা উদ্বেগের কারণ হয়ে দাড়িয়েছে।

পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও বলেন,অক্সি-মরফোন হলো মরফিনের একটি এনালগ,যা একটি এনালজেসিক ড্রাগ হিসাবে ব্যবহৃত হয়।এটি ইনজেকশন থেকে ওরাল ফর্মে নিয়ে আসা হয়েছে।এটি মূলত কাজ করে Central Nurve System এ (ব্রেইনে)।তীব্র ব্যথানাশক হিসেবে ক্যান্সার,হার্ট,দূরারোগ্য রোগে আক্রান্ত মৃত্যু পথযাত্রী রোগীর তীব্র ব্যথা কমানোর জন্য ব্যবহার করা হয়।

মাদক হিসেবে অক্সি-মরফোন ব্যবহারে পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া সম্পর্কে তিনি বলেন,অক্সি-মরফোন একটি ইউফোরিক ড্রাগ।যা মস্তিষ্কে প্রচন্ড আনন্দ অনুভূতি তৈরি করে।শরীরে সাময়িকভাবে দুঃখ-কষ্ট, ব্যথা ভুলিয়ে দেয়।

ব্যথার সিগনাল গিয়ে মস্তিষ্ককে উত্তেজিত করতে পারে না।মস্তিষ্ক বোধহীন অসাড় হয়ে যায়।ক্রমাগতভাবে অক্সি-মরফোন ব্যবহারে এটির প্রতি নির্ভশীলতা তৈরি হয়।ব্যবহারকারীরা এটি পাওয়ার জন্য বিভিন্ন প্রকার অপরাধকান্ডে জড়িয়ে পরে।

উপরোক্ত অভিযানটি ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের গোয়েন্দা লালবাগ বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মোঃ রাজীব আল মাসুদ,বিপিএম মহোদয়ের নির্দেশনায় এবং কোতয়ালী জোনাল টিমের টিম লিডার অতিঃ উপ-পুলিশ কমিশনার মোঃ সাইফুর রহমান আজাদ এর নেতৃত্বে পরিচালিত হয়।

যেকোনো সংবাদ পাঠান এই ইমেইলে [email protected]