যমুনা প্রতিদিন
ঢাকামঙ্গলবার , ৬ সেপ্টেম্বর ২০২২
  1. English
  2. অর্থ ও বাণিজ্য
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. খেলাধুলা
  6. গণমাধ্যম
  7. চাকরি
  8. ছবিঘর
  9. জাতীয়
  10. জেলার খবর
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. দেশজুড়ে
  13. ধর্ম
  14. নারী ও শিশু
  15. প্রবাসের কথা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

সুজানগরে হত্যা মামলার আসামির খামারে অগ্নিসংযোগ ও পুকুরে বিষ প্রয়োগ করে মাছ নিধনের অভিযোগ

এম এ আলিম রিপন,সুজানগর :
সেপ্টেম্বর ৬, ২০২২ ৯:৪৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

পাবনার সুজানগরে একটি হত্যা মামলার আসামিদের মুরগির খামারে অগ্নিসংযোগ করে দেড় হাজারের অধিক মুরগি পুড়িয়ে হত্যা,মাছের খামারে বিষ প্রয়োগ করে ১২ লক্ষাধিক টাকার মাছ নিধন ও বাড়িতে অগ্নিসংযোগের অভিযোগ উঠেছে বাদী পক্ষের লোকজনের বিরুদ্ধে।

জানা যায়,গত রবিবার রাতে উপজেলার ভাঁয়না ইউনিয়নের চরবিশ্বনাথপুর গ্রামে উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি আজম আলী বিশ্বাস পক্ষের লোকজনের সাথে স্থানীয় মোকাই শেখ পক্ষের পূর্ব বিরোধ ও জমিতে গিয়ে ঘাস খাওয়াকে কেন্দ্র করে রবিবার সংঘর্ষে এরশাদ শেখ (৩৪) নামে এক ব্যক্তি গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান।

এ ঘটনার পরপরই আসামি পক্ষের লোকজন বাড়িঘর ছেড়ে পালিয়ে যাওয়ায় আসামি পক্ষের আক্কাজ বিশ্বাসের বাড়িতে অগ্নিসংযোগ ও উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি আজম আলী বিশ্বাসের ছেলে হালিম বিশ্বাসের পোল্ট্রি মুরগির খামারে অগ্নিসংযোগ করে দেড় হাজারের অধিক মুরগি হত্যা ও সোমবার রাতের আধারে মাছের খামারে বিষ প্রয়োগ করে মাছ নিধনের ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় বাদি পক্ষের লোকজনকে দায়ী করে আজমআলী বিশ্বাসের স্ত্রী হালিমা খাতুন ও হালিম বিশ্বাসের স্ত্রী জাকিয়া হালিম জানান,ফার্মের ব্যবসা দিয়েই সংসারের খরচ চালাতেন। কিন্ত মুরগি পুড়িয়ে দেওয়া ও খামারের মাছ বিষ প্রয়োগ করে নিধন করায় এখন একেবারেই নিঃশেষ হয়ে গেলাম।এতে ৪০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেন তাঁরা। তবে আসামি পক্ষের অভিযোগ অস্বীকার করে মামলার বাদী নিহত এরশাদ শেখের পিতা মোয়াজ্জেম শেখ জানান নিজ সন্তানকে হারিয়ে এমনিতেই আমরা বাকরুদ্ধ।এ ধরণের ঘটনা কেন আমরা ঘটাতে যাব।আসামি পক্ষের লোকজন মামলা থেকে বাঁচতে অথবা তৃতীয় কোন পক্ষের লোকজন এ ধরণের ঘটনা ঘটাতে পারে বলে আমার ধারণা।

সুজানগর থানার ওসি আব্দুল হাননান জানান,এ ঘটনার সাথে জড়িতদের খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে।তবে থানায় এখনো মুরগির খামারে অগ্নিসংযোগ ও খামারে বিষ প্রয়োগ করে মাছ নিধনের কোন অভিযোগ কেউ দেয়নি।

তিনি আরো জানান,এরশাদ শেখ হত্যায় সুজানগর উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি আজম আলী বিশ্বাস ও তার ছেলে হালিম বিশ্বাস সহ ১৭ জন এবং অজ্ঞাত আরও কয়েকজনকে আসামী করে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের হলে পুলিশ অভিযান চালিয়ে উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি আজম আলী বিশ্বাস,স্থানীয় বিএনপি নেতা রফিক বিশ্বাস ও মামুন বিশ্বাসকে গ্রেফতার করে গত সোমবার পাবনা কোর্টে প্রেরণ করে।

এছাড়া মামলার অপর আসামীদের গ্রেফতার করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

প্রিয় পাঠক আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর সরাসরি জানাতে ই-মেইল করুন নিম্নের ঠিকানায়  jamunaprotidin@gmail.com