যমুনা প্রতিদিন
ঢাকারবিবার , ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২২
  1. English
  2. অর্থ ও বাণিজ্য
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. খেলাধুলা
  6. গণমাধ্যম
  7. চাকরি
  8. ছবিঘর
  9. জাতীয়
  10. জেলার খবর
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. দেশজুড়ে
  13. ধর্ম
  14. নারী ও শিশু
  15. প্রবাসের কথা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ঈশ্বরদীতে বকেয়া টাকাকে ‘ঘুষ’ হিসেবে ভিডিও করে ফাঁসানোর অভিযোগ

সাখাওয়াত হোসেন,চলনবিলঃ
সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২২ ৫:৪৮ অপরাহ্ণ
Link Copied!

পাবনা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ দাশুড়িয়া জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার (ডিজিএম) সাজ্জাদুর রহমানকে বিদ্যুৎ সংযোগের বকেয়া ৫০ হাজার টাকা দিয়ে সেটিকে ‘ঘুষ’ হিসেবে ভিডিও করে প্রচারের অভিযোগ উঠেছে

আমিনুল ইসলাম রানা নামের এক খেলাপি গ্রাহকের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় ঈশ্বরদী থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন দাশুড়িয়া জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার (ডিজিএম) সাজ্জাদুর রহমান।

অফিস সূত্রে জানা গেছে, বুধবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টার কিছু পরে ঈশ্বরদী উপজেলার দাশুড়িয়া পুরাতন ট্রাফিক মোড় এলাকার আনিছুর রহমান ওরফে হামেজ উদ্দিনের ছেলে আমিনুল ইসলাম রানা ৩/৪ জন সহযোগী নিয়ে অফিসে যান। সেখানে ৫০ হাজার টাকার একটি বান্ডিল নিয়ে ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার (ডিজিএম) সাজ্জাদুর রহমানকে ‘ঘুষ’ দেওয়ার অভিনয় করে সেটি ভিডিও করার চেষ্টা করেন। সেই সময় ঘটনাটি বুঝতে পেরে আমিনুল ইসলাম রানাকে ধরার চেষ্টা করা হলে আমিনুল ইসলামসহ তার সহযোগীরা অফিস থেকে দ্রুত পালিয়ে যায়।

এদিকে অফিস সূত্রে জানা গেছে,আমিনুল ইসলাম দাশুড়িয়া জোনাল অফিসের একজন খেলাপি গ্রাহক।তার বাবার নামে ৯ লাখ ৩ হাজার ৯৪৮ টাকা বিদ্যুৎ বিল বকেয়া থাকার কারণে আদালতে মামলা চলছে।

পাবনা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ দাশুড়িয়া জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার (ডিজিএম) সাজ্জাদুর রহমান বলেন,ওই গ্রাহকের ৯ লাখ টাকার বেশি বিল বকেয়া রয়েছে। তার সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। আমিনুল ইসলাম (রানা) আদালতে রিট করলে আদালত তাকে ৬ মাসের মধ্যে বিল পরিশোধ করার নির্দেশনা দেন। আমরা ৬ মাসের মাসিক কিস্তিতে বিল পরিশোধ করার ব্যবস্থা করি। কিন্তু আমিনুল ইসলাম (রানা) বিল পরিশোধ না করে উল্টো আমাকে দেখে নেয়ার নানা রকম হুমকি-ধামকি দেন।

পরবর্তীতে নতুন সংযোগ নিতে অফিসে আসেন আমিনুল ইসলাম। তখন তাকে আমরা আগের বকেয়া বিল পরিশোধ করতে বলি। তিনি তখন টাকা বের করে আমাকে দেন৷ আমি টাকা নিয়ে তাকে সেই টাকাটা ক্যাশ কাউন্টারে জমা দেওয়ার কথা বলি।এ সময় তার সাথে আসা বেশ কয়েকজন মোবাইলে ভিডিও করে সেটিকে ‘ঘুষ’ হিসেবে প্রচার করার চেষ্টা করে। পরে ওই দিনই থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়।

এ বিষয়ে খেলাপি গ্রাহক আমিনুল ইসলাম রানার মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) অরবিন্দ সরকার যমুনা প্রতিদিন কে বলেন,এ বিষয়ে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি।তদন্ত শেষে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

প্রিয় পাঠক আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর সরাসরি জানাতে ই-মেইল করুন নিম্নের ঠিকানায়  jamunaprotidin@gmail.com