যমুনা প্রতিদিন
ঢাকাবৃহস্পতিবার , ১৭ নভেম্বর ২০২২
  1. English
  2. অর্থ ও বাণিজ্য
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. খেলাধুলা
  6. গণমাধ্যম
  7. চাকরি
  8. ছবিঘর
  9. জাতীয়
  10. জেলার খবর
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. দেশজুড়ে
  13. ধর্ম
  14. নারী ও শিশু
  15. প্রবাসের কথা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

মান্দায় অধিক মূল্যে সার বিক্রিতে ইউপি চেয়ারম্যানদের ক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
নভেম্বর ১৭, ২০২২ ১:৩৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

নওগাঁর মান্দায় সার সংকট দেখিয়ে অধিক মূল্যে সার বিক্রিতে উপজেলা চেয়ারম্যান ফোরাম ক্ষোভ প্রকাশ করছেন। রবি মৌসুমের সরিষা ফসলের জন্য সরকার নির্ধারিত মূল্যে সার পাচ্ছেনা বেশি ভাগ কৃষক।

বিসিআইসি অনুমোদিত পরিবেশকদের নিকট সার না পেয়ে বাধ্য হয়ে খুচরা দোকান থেকে বেশি দামে সার ক্রয় করছেন কৃষকেরা। এ নিয়ে ইউপি চেয়ারম্যানেরা হতাশা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। কিন্তু সারের বাড়তি মূল্য নিয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কোন মাথা ব্যাথা নেই।

চোখে পড়েনি কৃষি অফিসের জোড়ালো কোন পদক্ষেপ ও মাঠ পর্যায়ে মনিটরিং। পয়েন্ট থেকে সরকারের নির্ধারিত মূল্যে সার না পেয়ে, নায্য মূল্যে সার পেতে কৃষকেরা ছুটে যাচ্ছেন চেয়ারম্যানদের কাছে।

ডিলার পয়েন্টে কৃষকদের সারের চাহিদার কথা জানালে তারা বলেন, সার চাহিদা মত আসছেনা, সারের সংকট, গোড়াউনে সার নামেনি, এমন নানা অজুহাত দেখাচ্ছেন ডিলার। নিরুপায় হয়ে কৃষকেরা খুচরা দোকান থেকে উচ্চ মূল্যে সার ক্রয় করছেন। তবে খোলা বাজারে বাড়তি দামে পর্যাপ্ত পরিমাণ সার মিলছে।

কৃষকদের সাথে কথা বলে জানাগেছে, তারা ডিলার পয়েন্টে সার না পেয়ে খুচরা দোকান থেকে ইউরিয়া সাড়ে ১২ শ, ডিএপি ১১শ পটাশ ১২ শ টাকা হারে ক্রয় করেছেন।

মান্দা উপজেলা চেয়ারম্যান ফোরামের সভাপতি ও ভারশোঁ ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান সুমন জানান, পরিবেশকদের সার কারসাজির কারণে কৃষকেরা বাজার থেকে বেশি দামে সার ক্রয় করছেন। সার পর্যাপ্ত পরিমানে আছে শোনা গেলেও পরিবেশকদের নিকট কৃষক পাচ্ছেন না সার। ভারশোঁ ইউনিয়নের পরিবেশক সুনিল পন্ডিত তার পছন্দের লোকজনকে সার দিচ্ছেন। হাত বদলে সেগুলো সার আবার খুচরা দোকানে চলে যাচ্ছে। এভাবেই সারের দাম বাড়ছে। পরিবেশকদের কারসাজিতে সাধারণ কৃষকেরা জিম্মি,পাচ্ছেনা সার। সারের জন্য প্রতিদিন শত শত কৃষক আমার কাছে ধরণা দিচ্ছেন। আমি নিরুপায় হয়ে ইউনিয়নের দায়িত্ব প্রাপ্ত উপসহকারি কৃষি কর্মকর্তা অনিল কুমারকে জানালে তিনি বলেন,আমার এসব দায়িত্ব নয়। ডিলার পয়েন্টে কয় বস্তা সার বিক্রি হলো আর কয় বস্তা মজুদ আছে শুধু এই রিপোর্ট দেওয়া আমার কাজ, বলে দায় এড়িয়ে যান তিনি।

চেয়ারম্যান আরও জানান, সারের কালো বাজারিতে অতিষ্ট কৃষক। আমার ইউনিয়নের প্রায় ১০ টি গ্রামের মানুষ আলু ও সরিষার জন্য সার পাচ্ছেন না।তবে বেশি দামে সার ক্রয় করলে যত খুশি নিতে পারবেন। ডিলারদের যোগসাজসে সরকার নির্ধারিত মূল্যে সারের এমন হাহাকার। সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের সঠিক মনিটরিং ও দেখভালের অভাবে সার কিনতে বিপাকে পড়েছেন কৃষক। ডিলারদের উপর ও কৃষি কর্মকর্তার সঠিক নজরদারি না থাকায় সারের এমন হাহাকার।

এনিয়ে চেয়ারম্যান সুমন জেলা প্রসাশকসহ সংশ্লিষ্ট অনেকের নিকট অভিযোগ করেন। এব্যাপারে তিনি স্থানীয় সংসদ সদস্যে মুহা.ইমাজ উদ্দিন প্রামাণিকসহ সংশিষ্ট উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছেন তিনি। এভাবে চললে কৃষকের মেরুদন্ড ভেঙ্গে যাবে। ফসল ফলাতে ব্যর্থ হবে। সেইসাথে অর্থনৈতিক ক্ষতির পাশাপাশি উৎপাদন খরচ বাড়ছে। তিনি আরো ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আমি নিজেও কৃষক। আমি নিজে আমার জমির জন্য সার পায়নি। এটা খুব দুঃখজনক। কোথায় কি জানিনা তবে আমার ইউনিয়নে সারের জন্য হাহাকার।

চেয়ারম্যান ফোরামের কোষাধক্ষ্য ও ইউপি চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ আব্দুল মতিন জানান,বিসিআইসি অনুমোদিত পরিবেশকদের নিকট থেকে কৃষকেরা সার পাচ্ছেন না। অথচ বেশি দামে সার মিলছে খুচরা দোকানে। ডিলার পয়েন্ট থেকে সারগুলো রাতারাতি বিক্রি হয়ে যাচ্ছে খুচরা দোকানদারদের নিকট। ডিলারের কাছে ১ বিঘা জমিতে ফসল চাষের একজন কৃষক যে পরিমাণ সার পাচ্ছেন, ১০বিঘা জমিতে ফসল চাষের জন্য কৃষক একই পরিমাণ সার পাচ্ছেন। এতে ১০ বিঘা জমির মালিকরা পড়ছেন বিপাকে। সার কালো বাজারে বিক্রিসহ নানামুখী সমস্যার কারণে তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তাদের দোষারোপ করেন।

বিষ্ণুপুর ইউপি চেয়ারম্যান ও চেয়ারম্যান ফোরামের সাধারণ সম্পাদক এসএম গোলাম আজম জানান, সার সংকটের বিষয়ে উপজেলা মিটিং এ আমরা ইউএনও স্যারকে জানিয়েছি। সার সংকট ও বাড়তি দামের বিষয়ে মিটিংয়ে কৃষি কর্মকর্তাকে অবহিত করে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেন তিনি।

সারের বাড়তি দাম নিয়ন্ত্রণ ও কালোবাজারি বন্ধে কি কি পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়ে এ বিষয়ে মান্দা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শায়লা শারমিনের কাছে জানতে চাইলে দায় এড়িয়ে তিনি বলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সঙ্গে কথা বলেন। তিনি সার-বীজ মনিটরিং কমিটির সভাপতি। এর বেশি সাংবাদিকদের সঙ্গে কোন কথা বলতে চাননা তিনি।

প্রিয় পাঠক আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর সরাসরি জানাতে ই-মেইল করুন নিম্নের ঠিকানায়  jamunaprotidin@gmail.com